আজি শরৎ তপনে প্রভাত স্বপনে

অক্ষর বিডি : সবাইকে স্নিগ্ধ শরতের কাশফুল শুভেচ্ছা! শুধু কাশফুলের শুভেচ্ছা দিলে অভিমানী শিউলি চুপসে যাবে যে। শরতের ফুল গুলো বড্ড অভিমানী।
 
শরতের স্বচ্ছ নীল আকাশ দেখে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছেন- ‘নীল আকাশে কে ভাসালে সাদা মেঘের ভেলা রে ভাই লুকোচুরি খেলা।’
 
ভাদ্র-আশ্বিন দু্ই মাস শরৎকাল- অর্থাৎ আগস্ট মাসের মধ্যভাগ থেকে অক্টোবর মাসের মধ্যভাগ পর্যন্ত। তখন প্রকৃতি হেসে উঠে- তাই কবি গুরু গেয়ে উঠেন, ‘মেঘের কোলে রোদ হেসেছে বাদল গেছে টুটি’- কিন্তু “মেঘ বলেছে ‘যাব যাব’, রাত বলেছে ‘যাই’,/সাগর বলে ‘কুল মিলেছে- আমি তো আর নাই।”
 
রবীন্দ্রনাথের গান দিয়ে সকাল শুরু করেন অনেক বাংগালীরা আর যদি হয় শরতের সকাল তাহলে তো কথাই নেই। শরতের ভোরের স্নিগ্ধতায় এ অপরূপ ঋতু শরৎকে দেখে রবীন্দ্রনাথ বলেছেন- ‘আমার রাত পোহালো শারদ প্রাতে।’
শরৎ হল প্রকৃতির ঋতু- তাই এই ঋতুতে প্রকৃতির শোভা বৃদ্ধি করতে ফুটে উঠে শিউলি, শাপলা, পদ্ম, টগর, কামিনী, মালতি, জবা, হাসনাহেনা এবং শুভ্র কাশফুল। কাশফুল শরতের আগমনের প্রতীক।
মেঘ মাধুর্যে পরিপূর্ণ বর্ষার আকাশকে এবং শ্রাবণের সজল মেঘের বারিধারাকে ‘যেতে নাহি দিব’ বলে শিশির সিক্ত শিউলিঝরা শরৎ প্রাতের সমীরণে চলছে এখন শরত কাল। অক্ষরের সকল পাঠকদের তাই জানাই শুভেচ্ছা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *