Wednesday, January 19, 2022
Home > আইডিয়া > ব্যবসা শুরুর সব দারুণ আইডিয়াগুলো (পর্ব ১)

ব্যবসা শুরুর সব দারুণ আইডিয়াগুলো (পর্ব ১)

Spread the love

নিয়াজ মাহমুদ

১। চ্যাটবট তৈরি করা। সম্প্রতি চ্যাটবট কিন্তু ধুন্ধুমার জনপ্রিয়তা পেয়েছে। কে কার থেকে ভালো চ্যাটবট বানাতে পারে! সেই প্রতিযোগি্তায় যেন সারা বিশ্বই শামিল হয়েছে এখন। কোনো বাস শিডিউল , ট্রেন শিডিউল কিংবা কোনো ক্লাস রুটিনের জন্য এখন আর প্রতিষ্ঠানগুলো এবং অফিসগুলোতে সরেজমিনে যেতে হচ্ছেনা। কোনো বিশেষ নির্দেশনা? আছে! সমাধান! চ্যাটবট!মানুষের সাথে মিশে যাবার প্রতিযোগিতায় কোন চ্যাটবট এগিয়ে থাকবে! নির্মাতা কে? ব্যাপারস্যাপারই আলাদা। তাহলে বুঝুন, সামনের দিনগুলোতে এই চ্যাটবটের ব্যবসায় সম্ভাবনা ঠিক কতোখানি!
২।বিপণন সেবা প্রদান। অল্পতে ভালো ব্যবসা। লসে পড়ার সম্ভাবনা একেবারে কম বললেই চলে। ঝুঁকি নিতে পারেন। তবে একটা কথা সত্য। আপনি যদি ঝুঁকি না নেন, তাহলে ইহ জগতে আপনাকে দিয়ে ব্যবসা হবে কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে।
৩। গ্রাফিক ডিজাইনার। আসলে গ্রাফিক ডিজাইনিং ব্যাপারটা একটু আলাদা। আলাদা কেন? কারন এখানে শৈল্পিক একটা ব্যাপার আছে। শিল্প প্রদর্শনী। এক কথায় শিল্পের রূপকার ই বটে এক এক জন গ্রাফিক ডিজাইনার। কারন তারাই আইডিয়ার উদ্ভাবন ঘটায়! এবং তারাই তাদের মস্তিষ্ক প্রসূত এক একটা শিল্পকে যেন সুনিপুণ হাতে, সুযত্নে লালিত করে থাকে। উৎকর্ষের সর্ব উচু শিখরে আরোহণ করতে পারে এক এক জন গ্রাফিক ডিজাইনার। অতি সহজে। শুধু কিছু দক্ষতা আর নিজের মেধা। এরকম দক্ষ এক এক জন শিল্পের কারিগরকে সাথে নিয়ে ব্যবসায় নামলে তারা লাভের থেকে হয়তো শিল্পে গুরুত্ব বেশি দেবে। কিন্তু এতে আপনার কিন্তু কোনো ক্ষতি হচ্ছেনা। বরঞ্চ লাভ ই হচ্ছে। আর এখন রাস্তায় ঘাটে, জীবনের প্রতিটি পরতে পরতে ঘটে যাওয়া কিংবা লুকিয়ে থাকা ঘটনার উপস্থাপনে কিন্তু গ্রাফিক ডিজাইনিং এর ভূমিকা অনন্য। বুঝে শুনে পা ফেলবেন। পিছলে গেলে সমস্যা। তবে কথায় আছেনা। সাবধানতার মার নেই। এমন যেন আবার না হয় যেন আপনার শৈল্পিক গ্রাফিক ডিজাইনিং এর ব্যবসার জন্য কারো বড় কোনো ক্ষতি না হয়ে যায়।

৪। ব্যক্তিগত বা ভার্চুয়াল সহকারী নিয়োগ ।ব্যক্তিগত সহকারী নিয়ে ব্যবসায় নামবেন। অসুবিধা নেই। তবে বাধ সাধবে আপনার সামর্থ্য। মাথায় রাখবেন, ব্যক্তিগত সহকারীর বেতন কিন্তু আপনাকেই দিতে হবে । আবার হয়তো ভার্চুয়াল সহকারীকেও আপনার বেতন দিতে হতে পারে। তবে প্রযুক্তির সহায়তা নিলে তো কথাই নেই। ব্যবসা আপনার , সবকিছু আপনার উপরেই নির্ভরশীল। যখন নিজের পক্ষে আর সামলানো সম্ভব হবেনা তখন একজন সহকারী নিয়োগ না করলে আপনার ব্যবসায় ধ্বস নেমে যেতে পারে! সুতরাং সাধু! সাবধান!
৫। বই সংরক্ষণ সেবা। এটা আদৌ কোনো ব্যবসা নাকি সমাজ সেবা। জানা নেই, তবে , সমাজ সেবা করতে গিয়ে একটু আয় হলে তো আর খারাপ না। তবে ঘুরেফিরে আসলে এটা কিন্তু ব্যবসাই। আর লাভজনক ও বটে।
৬। এফিলিয়েট মার্কেটিং। ভালো আইডিয়া। তবে যতদূর বুঝি, সবাই করতে পারেনা। যদি নিজে দক্ষ হয়েই থাকেন কিংবা দক্ষ জনশক্তিকে কাজে লাগিয়ে দিতে পারেন, তাহলে ডানে বায়ে আর কোনো কথা নেই। কম কষ্টে সাত সমুদ্রের পার্বণ পেরিয়ে যেতে পারবেন। সফলতা আসবেই।
৭। সামাজিক মিডিয়া পরামর্শদাতা । এখানে কিন্তু আবার আপনার মুখের কথার অনেক দাম। সুতরাং একটু বুঝে শুনে আগালে খারাপ করার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।
৮। সেক্রেটারিয়েল সেবা ।
৯। অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপার। অ্যাপস ডেভ্লপারদের বর্তমান জামানায় বসে থাকার কোনো জো নেই। এদের কাজ থাকবেই। আর এটা অতি সহজেই অনুমেয় যে, প্রযুক্তির এই যুগে, মানুষের কাজকে সহজ করার জন্য অ্যাপস বিনির্মাণ এর পেশা সবথেকে জনপ্রিয়। এই পেশা এত জনপ্রিয় হলেও চাহিদার তুলনায় অ্যাপস ডেভেলপারদের সংখ্যা কিন্তু খুবই অপ্রতুল। সুতরাং ব্যবসায়িক সম্ভাবনা বিবেচনা না করলেও চলবে। সোজা নেমে পড়ুন । লেগে থাকুন।
১০। পরীক্ষক বা সমালোচক। নিজেকে যাচাই করে নিন। যোগ্যতা বিচার করে কাজে লেগে পড়ুন।
১১। অনলাইন ডেটিং পরামর্শদাতা। জানিনা, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে কতটুকু সফল হবে এই ব্যবসা। তবে এতটুকু নিশ্চিত যে, ভবিষ্যতে কাজ করতে এই আইডিয়া তুলে রাখতে পারেন সযত্নে নিজের কাছে।
১২। ওয়েবসাইট ডেভেলপার।এই ওয়েবসাইট ডেভেলপারদের কাজে লাগিয়ে যদি ব্যবসা শুরু করা যায়, তাহলে খারাপ কিছু হবার সম্ভাবনা প্রায় শূন্য পারসেন্ট। আর এই খাতের কোথায় কি রকম তা আসলে বলার অপেক্ষা রাখেনা। সবাই মোটামুটি জানে। বাকি রইল শুধু সুযোগ বুঝে কাজ শুরু করে দেয়া।
১৩। অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা পরামর্শদাতা । আলাদা করে কিছু বলার নাই।
১৪। ইবে সহকারী বা বিক্রেতা। কষ্ট করেন, কেষ্ট পাবেন। কারন মানুষকে বশে আনা ঠিক না, তবে একরকম কনভিন্স করাটা পৃথিবীর সবথেকে কঠিন কাজ।
১৫। ডেস্কটপ পাবলিশার।
১৬। ব্যবসায়িক পরিকল্পনা্র রূপকার। উচ্চ মানের চিন্তা ভাবনা। উচ্চমানের পুঁজি। অতি মাত্রার ঝুঁকি! আবার অকল্পনীয় লাভ! নিজে শুরু করলে তো সব নিজের ই। কিন্তু অন্য কারো জন্য করলে ঝুঁকি টা বরং আপনার ই। তবে ভালো কিছু হলে …………… সে কৃতিত্ব ও কিন্তু পুরোপুরি আপনার ই।

Facebook Comments