Sunday, January 16, 2022
Home > গল্প > সাইকেল রাইড এবং একটি বন্ধুত্বের গল্প

সাইকেল রাইড এবং একটি বন্ধুত্বের গল্প

Spread the love

সাব্বির সাদী 
তরুণ গল্পকার

 

নতুন সাইকেল চালাতে শিখেছি। প্রতিদিন বিকেলে গ্রামের কাঁচা মেঠোপথে সাইকেল নিয়ে বেরোই। ফিরতে হয় সন্ধ্যার আগে। সারাদিন স্কুল। এততুকু সময় সাইকেল চালিয়ে মন ভরে না। আব্বুর ভয়ে স্কুল কামাই দেবারও সুযোগ নেই। পাছে সাইকেলটাই হারাতে হবে। দিনকয়েক পরেই স্কুলের ঈদের ছুটি শুরু হল।

২. 

সেদিন খুব সকালে সাইকেল নিয়ে বের হলাম। গ্রামের মেঠোপথ পেরিয়ে বহুদূর গেলাম। মন যেদিকে চায়,দু’চোখ যেদিকে যায়। যেতে যেতে একটা পার্ক দেখতে পেলাম।আমি তার ভেতরে প্রবেশ করলাম। কী মনোরম পরিবেশ! যেদিকে তাকাই শুধু গাছ আর গাছ। ফুলের গাছ, ফলের গাছসহ হরেক প্রজাতির নাম না জানা বিদেশি গাছ।

জায়গাটা বেশ সাজানো গোছানো। মাঝখান দিয়ে পরিচ্ছন্ন ইটফেলা রাস্তা। পথের পাশে দুটো নারকেল গাছের মাঝে একটা করে বেঞ্চ। সামনে বিশাল দিঘি। স্বচ্ছ পানি টলমল করছে। দিঘির জলে সূর্যের আলো খেলা করছে। প্রথম দেখাতেই পার্কটির প্রেমে পড়ে গেলাম।

ছোট্ট মনের প্রেম,তাই প্রতিদিন যেতাম পার্কে। ঈদের পরদিন বিকেলে গেছি। প্রচণ্ড ভীড় সেখানে। মানুষের ভীড়ে গিজগিজ করছে। সেখানে দেখলাম আমার সমবয়সী দু’টি ছেলে-মেয়ে সাইকেল চালাচ্ছে। আমাকে দেখে ওরা কাছে ডাকলো এবং আমাকে ওদের বন্ধু করে নিলো।

ওরা দু’জনে সম্পর্কে ভাই-বোন। তারা ঢাকায় থাকে। ঈদের ছুটিতে গ্রামে বেড়াতে এসেছে। আমাদের বন্ধুত্ব খুব জমলো। প্রতি সকালে আমরা সাইকেল নিয়ে বেরুতাম, সারাদিন নতুন নতুন জায়গায় ঘুরতাম,হৈ-হুল্লোড় করতাম এবং সবশেষে সন্ধ্যায় বাসায় ফিরতাম।

খুব মজা করতাম তিনজনে। এভাবে দেখতে দেখতে ছুটি শেষ হয়ে গেল। আমার স্কুল খুললো।ওরা চলে গেল ঢাকায়। কিন্তু ওরা স্মৃতি হয়ে রয়ে গেল আমার মনে। আর কোন ঈদে ওদের দেখা পাই নি আমি। বেলায় বেলায় সময় গড়ালো। একদিন আমিও ঢাকা এলাম পড়ালেখা করতে। মাঝে মাঝে মনেপড়ে ওদের কথা। মনেমনে খুঁজি তাদের।কিন্তু তাদের আর খুঁজে পাইনা। কোটি মানুষের ভীড়ে ওদের খুঁজে পাওয়া সহজ নয়।

.

শুক্রবার সকালে পল্লবীর আবাসিক রাস্তা ধরে আনমনে হাঁটছিলাম। আকাশে মেঘ ছিল। ঝিরিঝিরি বৃষ্টি নামছিল। ইচ্ছে করেই ভিজছিলাম।
-সাদি, কেমন আছ?
হঠাৎ মেয়ে গলার আওয়াজে চকিত হয়ে পিছন ফিরলাম। দেখলাম, একটি মেয়ে দাঁড়িয়ে আছে। পাশে একটি ছেলে। দু’জনই রাইডের পোশাকে। ওদের চিনতে পেরে আমার আনন্দ যেন আর ধরে না। ওরাই আমার ছোটবেলার সেই হারিয়ে যাওয়া বন্ধু।

এতদিন পর ওদের দেখা পাব তা কখনও ভাবিনি। মেয়েটি বলল, “ছোটবেলার রাইডের কথা মনেআছে তোমার?” আমি মাথা নাড়লাম। ওদের বাসা আমাদের বাসা থেকে খুব দূরে নয়। বৃষ্টি ভিজে আমরা অনেক গল্প করলাম। ছেলেটি বলল,“ আমরা প্রতি শুক্রবার রাইডে যাই, আজ থেকে তুমিও যাবে আমাদের সাথে।“ মেয়েটি পিটপিট চোখে তাকিয়ে জোর দিল যে যেতেই হবে। আমি শুধু মাথা নাড়লাম। মেয়েটির চোখ অগ্রাহ্য করার সাহস আমার ছিল না। আজও তা হয়ে ওঠেনি।

Facebook Comments