Wednesday, January 19, 2022
Home > গল্প > বীভৎস রাত পর্ব-২ ।। আতিক ফারুক

বীভৎস রাত পর্ব-২ ।। আতিক ফারুক

Spread the love

ফাহাদের বাবা মারা গেছে অনেক আগেই। বিপদে পরলে প্রিয় মানুষদের খুব মনে পরে। ফাহাদেরও আব্বু-আম্মুর কথা ভীষণ মনে পরছে। সারারাত হতাশা আর বিষণ্নতায় কেটে গেল। পুলিশ দু’জন ফাহাদকে সারারাত তাদের সাথে গাড়িতে রেখেই ঘুরিয়েছে পুরো এলাকা।

পরদিন সকালে তাকে নিয়ে যাওয়া হলো শ্যামলপুর পুলিশ ফাঁড়িতে। বড় গোঁফওয়ালা পুলিশটা কেন যেন খুশিতে গদগদ করছেন। মনে হচ্ছে সোনার হরিণ পেয়ে গেছে। ফাহাদ জানতে পারলো ওই গোঁফওয়ালার নাম রফিক হায়দার। পুলিশ কনস্টেবল। আরেকজন মজনু মিয়া। তাদের উপরই এই দায়িত্ব অর্পিত হয়েছিল খুনির আসামি ধরার। তাদের ভাষ্যমতে তারা আসামি পেয়ে গেছে এই কারণেই তারা খুশিতে গদগদ করছেন।

কিন্তু, ফাহাদ তো এখনো বিস্মিত।
বুকের ভেতর কেমন যেন অজানা এক আশঙ্কা কাজ করে! সে মনেমনে ভাবে আমি তো খুন করি নি। তাহলে, আমাকে কেন ওরা ধরল? নাকি শেষ পর্যন্ত আমার ফাঁসিই হয়ে যাবে? এমন নানা প্রশ্ন ফাহাদকে আচ্ছন্ন করে ফেলে।

দুপুর ৩ টায় পুলিশ ইন্সপেক্টর অপূর্ব চৌধুরী আসবেন; তখন জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে ফাহাদকে। থানার অন্যান্য হাজতিরা বলাবলি করছে এই স্যারের কাছে এখনো পর্যন্ত কোনো খুনি ছাড়া পায়নি। অপরাধীদের নাকি তিনি দেখেই চিনেই ফেলেন। আর কত কি বলছে তারা। ফাহাদ সেদিকে কান দেয়না। শুধু বাড়িতে থাকা ছোট্ট ভাইটার জন্য মনটা হু হু করে ওঠে। কেন যেন ফারিয়ার কথাও খুব মনে পরছে। কে জানে তাকে একসাথে এতগুলো বিপদের সম্মুখীন হতে হবে। ফারিয়ার সাথেও ব্রেকআপ হলো আবার মিথ্যে পুলিশি ফাঁদেও পড়লো। ফাহাদের অজান্তেই কপোল বেয়ে গড়িয়ে পরে দু ফোঁটা অশ্রু।

(চলবে)

প্রথম পর্ব পড়ুন এখানে:

Facebook Comments