বুধবার, নভেম্বর ৩০, ২০২২
Home > গ্রন্থ বিশ্ববিদ্যালয় > বই পর্যালোচনাঃ ( সাতকাহন) সমরেশ মজুমদার

বই পর্যালোচনাঃ ( সাতকাহন) সমরেশ মজুমদার

Spread the love

বই পর্যালোচকঃ সিন্থীয়া তিশা  

সমসাময়িক লেখক হিসেবে সমরেশ মজুমদারের কোনো জুড়ি নেই।সহজ সরল ভাষায় খুব স্বাভাবিক ভাবেই তার লেখায় ফুটিয়ে তুলতে পারেন জীবনের সব স্তরের চিত্র। পশ্চিমবঙ্গের এই লেখকের শৈশব কাটে ডুয়ার্সের চা বাগানে।এজন্যই সাতকাহনে দেখতে পাওয়া যায় চা বাগানের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপূর্ব সুন্দর বর্ণনা। সাতকাহন উপন্যাসটিতে বিংশ শতাব্দীর মধ্যবর্তী সময়ে পুরুষশাসিত সমাজে নারীর অবস্থান তুলে ধরার পাশাপাশি প্রকাশ পেয়েছে নারীবাদী চেতনা।প্রোটাগনিস্ট দীপাবলি জলপাইগুড়ির চা বাগানে বড় হওয়া এক কিশোরী যার জীবনের ঘাত প্রতিঘাতের গল্প এই সাতকাহন।আপোষহীন-সংগ্রামী এই নারী চরিত্র নিঃসন্দেহে সমরেশ মজুমদারের অন্যতম সেরা সৃষ্টি।

মাত্র দশ বছর বয়স থেকেই দীপাকে অতিক্রম করতে হয় নানা বাধা বিপত্তি,মুখোমুখি হতে হয় কিছু অপ্রিয় সত্যের।চেনা জগত টা খুব জলদি ই একদম অচেনা হয়ে যায়।কিন্তু তবুও দীপা থেমে থাকেনি।নিরন্তর চেষ্টা চালিয়েছে নিজের সম্মান প্রতিষ্ঠার।নিজের মেধা কে কাজে লাগিয়ে অর্জন করেছে সাফল্য কিন্তু সাফল্য অর্জনের এই পথ মোটেও সহজ ছিল না তার জন্য।প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করতে হয়েছে সমাজ,পরিবার এমনকি মাঝে মাঝে নিজের সাথেও।একজন নারী যে পুরুষের চেয়ে কোনো অংশে কম না তা দীপাবলি বুঝিয়ে দিয়েছে চোখে আঙুল দিয়ে।সমাজের ঘুনেধরা সংস্কারের বিরুদ্ধচারণ করে সমাজে নিজের অবস্থান তৈরি করেছে।সাধারনের মাঝেই দীপাবলি অসাধারণ। গল্পের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তার চরিত্রের বিকাশ এবং জীবনবোধের পরিবর্তন গল্পটিকে অন্য এক রুপ দিয়েছে।বাংলার প্রতিটি নারীই দীপাবলির মাঝে অল্প হলেও নিজকে খুঁজে পাবে। কেউ হয়তো তার উপর হয়ে যাওয়া অন্যায় গুলোর স্বীকার আবার কেউ হয়তো তার মত অন্যায়ের বিরুদ্ধচারী।

পাঠ প্রতিক্রিয়া- স্রেফ সময় পার করার উদ্দেশ্য বইটি পড়া শুরু করেছিলাম।৫/১০ পৃষ্ঠা পড়ার পরই মনে হলো যেন আটকে গেলাম এই গল্পে।প্রায় ৭০০ পৃষ্ঠার বইটি শেষ করি তিন দিনে।দীপাবলি কে যতই চিনেছি ততই অবাক হয়েছি।কখনো মনে হয়েছে দীপা আমার মত আবার কখনো তার সাহসের সাথে নিজেকে তুলনা করতে পারিনি।বিংশ শতাব্দীর নারীদের চিন্তা ও যে কতটা আধুনিক ছিল তা এই উপন্যাস না পড়লে বুঝতাম না।দীপবলি, রমলা সেন আর মায়ার আধুনিকতা দেখে নিজের চিন্তাচেতনাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বাধ্য হয়েছি। বইটি না পড়ে থাকলে অনুরোধ করবো পড়তে অবশ্যই।

Facebook Comments