রবিবার, নভেম্বর ২৭, ২০২২
Home > বই আলোচনা > বইটির নাম ও প্রচ্ছদের মধ্যে ‘মানুষের আঙ্গুল’ শব্দটা আমাকে পড়তে আগ্রহী করে তোলে ~ রুম্মান তার্শফিক

বইটির নাম ও প্রচ্ছদের মধ্যে ‘মানুষের আঙ্গুল’ শব্দটা আমাকে পড়তে আগ্রহী করে তোলে ~ রুম্মান তার্শফিক

Spread the love

বইয়ের নামঃকালো বরফের পিস্তল
কবিঃরুহুল মাহফুজ জয়
প্রচ্ছদঃরাজীব দত্ত

প্রকাশনীঃজেব্রাক্রসিং প্রকাশন
পশ্চিমবঙ্গ পরিবেশকঃধ্যানবিন্দু প্রকাশন
অনলাইন পরিবেশকঃrokomari.com
মুদ্রিত মূল্যঃ১২০৳

কবিতাক্রম
-ভূগোল
-বিমানবালা
-নিজাম বিশ্বাসের মুরগী
-ফটো
-কল্পিত মদের শিকার
-ভাষা ও বিষাদ
-সিজোফ্রেনিক
-সমুদ্রপুত্র
-অসম্পূর্ণ মেঘ
-উচ্চতা বিষয়ক
-রাক্ষসপুরীর কবি
-পরীবিবি
-দ্য ওয়ার্ল্ড অব ফাতিমা
-পিংক উইসেলের পৃথিবী

‘কল্পিত মদের শিকার’এবং ‘ভাষা ও বিষাদ’ এ কবিতা দুটো সিরিজ কবিতা।সিরিজের কবিতাগুলো আমার ভালো লেগেছে ভাবনার বিস্তারের জন্য।

“আমাদের না চেনা প্রেম নিয়া কুৎসা রটায়
ঈর্ষান্বিত কবিদল –
ঈর্ষায় ঈর্ষায় ফ্রিদার হৃদয়ের দাগগুলি মুছে যায়”

আরেকটা সিরিজ কবিতার অংশ

“বাবা কি চেয়ার?

তার উপরে বসে থাকে সংসার
ছানাপোনা
বউয়ের ভালোবাসা অভিমানের ভার”

লাইনগুলোতে শব্দ প্রয়োগ ভালো ছিল,শব্দেন্দ্রিয়তা আরো সুন্দরভাবে প্রয়োগ ছিল।

পুরো বইয়ে বাংলা শব্দের পাশাপাশি ইংরেজি শব্দগুচ্ছের সুন্দর প্রয়োগ কবিতাগুলোকে স্বাভাবিক অাধুনিক কবিতাতে রূপান্তর করেছে।

‘সিজোফ্রনিক ‘ ও ‘পিংক উইসেলের পৃথিবী’ কবিতা দুটো বড় এবং তাতে ভাবের পূর্নাঙ্গ বিস্তার ছিল।
‘প্রেমের পা,মৃত্যুবাহক!’
-লাইনের মাধ্যমে কবিতা শুরু করলেও সমাজের অজস্র মানুষের গল্প ছিল লুকিয়ে,এত এত মানুষকে একটা কবিতাচয়ন করাটা হয়তো সহজ নয়।কিন্তু কবি এটা সহজাত ভাবেই করে।
‘যে ইচ্ছাতে থাকো,থেকো অনঙ্গের সেলে
জন্মাক পৃথিবী ফের পিংক উইসেলে’।
-কবিতাটিতে ফজরের আযান থেকে পৃথিবীর জীবন কর্মোদ্যমের অসাধারন বর্ণনা পাওয়া যায়।পৃথিবী ধ্বংসের পর আবার সৃষ্টির জন্য দুজন মানুষ থেকে তিন হওয়ার স্বপ্নই কবি কবিতায় দেখেছে।

বাকি কবিতাগুলোর মধ্যে ‘ফটো’ কবিতাটা আমার ভালো লেগেছে।
‘দ্য ওয়ার্ল্ড অব ফাতিমা’ কবিতার শেষ লাইনও আমাকে ভাবায়, নতুন নতুন শব্দ যুগলের ব্যবহার।
“তোমার চোখে প্রশ্নচিহ্নগুলোরে সামার
রেইনড্রপস ভাবি,ভাল্লাগে আমার “।

কবির সমুদ্র প্রেম,বিদেশ ভ্রমণে আগ্রহ, পাহাড় প্রীতি এগুলোর স্বচ্ছ ধারণা আপনি কবিতা পড়ে পাবেন।তবে এই কবিতাগুলো সর্বস্তরের পাঠকের জন্য না।অনেক স্থানের নাম,ছন্দ আর শব্দ ব্যবহার সকল পাঠক সহজে পড়েই বুঝে ফেলবে না।আমি একবার পড়ে বুঝি নাই এমন কবিতা আছে।আমাকে দু’তিনবার পড়তে হয়েছে ভিতরের কাব্য ও কবিতা বুঝতে।

হয়তো আমি কবিতা প্রেমী নই,তাই কবিতাগুলো কম বুঝেছি।তবে কিছু কিছু কবিতা আমার মত কবিতা না পড়ুয়ার মনেও থেকে যাবে,লাইন গুলো আমার চোখে ভাসে ঠিক তেমন। বর্ষায় দীঘির চিন্তা করলে যেমন শাপলা বা পদ্ম ভাসে মনের উঠানে।

Facebook Comments