Wednesday, January 19, 2022
Home > ছড়া/কবিতা > পার্থ অগাস্টিনের তিনটি কবিতা

পার্থ অগাস্টিনের তিনটি কবিতা

Spread the love

“যদি আবারো হঠাৎ দেখা হয়”

যদি আবারো হঠাৎ দেখা হয়
গুড়গুড় বৃষ্টিতে পরস্পর
কনকনে ঠাণ্ডায়-নূপুরের ডাক
অতঃপর, চুমুর বিষাদ-রাত্রিগ্রহণ;
নিখুঁত জলের বুকে দেবে যাওয়া
পায়ের কৌশল! যদি দেখা হয়।

হারানো রোমাঞ্চ ভর করে চোখে-ঠোঁটে-বুকে…
টলমল জলে প্রেমের ডুবোডুবি;
অতিসামান্য স্মৃতি টুংটাং শব্দে
বেজে যায়,বেজে যায়।

এ শহর মুদ্রার লয় গুনে কেবল
ভুতুড়ে গলির রন্ধ্রে রন্ধ্রে ফাঁদ;
তবু অজস্র রোশনায়,কীর্তন মাড়িয়ে–হাঁটি নির্বাক।
অনাগত এক চড়ুইয়ের ছলে ঝরে বোকা জোৎস্না…
রাত খসে পড়ে পায়ে।

যদি আবার হঠাৎ দেখা হয়
ঝলমল রোদ্দুরে পরস্পর
ব্যথার পকেটে উঁকি দিয়ে
ভেজা শামুক কুড়াবো;

পুনশ্চঃ
“ছোড়া কয়েনের দু-পৃষ্ঠায়
চুপ ভাগ্য বিধাতা।”

 

প্রিপোর্ট

এইসব চেনাপথ চলে গেছে মৃত্যুর দায়ভার নিয়ে। রেখে গেছে শত-শত মহাশূন্য-যাত্রী! সময়ের উত্তাপে পোড়া কালো-কালো দূর্গে, যারা মুখ ডুবিয়ে রাখে প্রতিদিন।
.
রাত ভোর হলে, দু’হাত ভরা অন্ধকারে জড়ো হয় সারি-সারি হাড়ের মিছিল। তাদের লাল-কালো ঠোঁটে যন্ত্রের চাষ। দ্বিখণ্ডিত কপালে জমা অদৃষ্টের শীলা। যুদ্ধ চলে খুটে খাওয়া দাঁতের সাথে; যুদ্ধ চলে প্রতিবেশী ক্ষুধার সাথে…
দুঃখ কি তাদের মতো! কিংবা বিপরীত?

তবুও বুকে-আঁকা মৃত চাঁদের আলোয়, তুলে ধরা বৃহৎ মানচিত্র এই তো শ্রীমুখ! এই তো বাংলাদেশ!
.
দিনের সমাপ্তিরেখায়, যখন সূর্য টলে পড়ে সন্ধ্যার গা ঘেঁষে বাতাসে তখন ভাসে পায়ের সম্মতি আর মন-

করা ডাক : ‘লেইস ফিতা লেইস…।’ কারও কারও চোখে-মুখে তখনও অনাশ্রিত ঢেউ। ঢেউ ওঠে, ঢেউ নামে, খালি হয় প্রি-পোর্ট

 

মুহুরী নদী

নদীর ভেতরে শুয়ে আছে সতেরোটি গোলাপ লাশ।
গতবছর তারা তীর্থভ্রমণে গিয়েছিলো সমুদ্রে। প্রাণে-প্রাণ মেলাতে। ঝিনুকের মাংস ভেদে ঢুকে যাওয়া সঙ্গম দৃশ্য কতোটা নিষ্ঠুর, তারা দেখেছিলো। তারা দেখেছিলো কীভাবে গোপন একটি ঘাঁ ঘাপটি মেরে বসে হাঙরের মুখে হিংস্র নিঃশ্বাস নিয়ে। সমুদ্রের ভেতরে কীভাবে দাবানলে পুড়ে যায় অজস্র নিষ্পাপ ক্ষুদ্র প্রাণ
অতঃপর সূর্যের ডানা কেটে কীভাবে পশ্চিমা আকাশ মেলে ধরে অন্ধকার।
আহা! সে কী নিখুঁত দৃশ্য…
.
এ দৃশ্য শেষে তারা ফেরে বাড়ীর পথে ই

সরীসৃপের ন্যায় পিচ্ছিল সেতুতে পিছলে পড়ে চলন্ত চার-চাকা। ধুমড়ে-মুচড়ে টলে পড়ে মুহুরী নদীর গর্ভাগারে। ক্রমে ক্রমে রুদ্ধশ্বাস। মৃত্যুর সম্মুখে যেতে যেতে বলে:

হে নদী, তুমি যদি বৃদ্ধ হও শেষপ্রান্তে রবে ক্রমে ক্রমে, সতেরোটি গোলাপ লাশ।

Facebook Comments