Friday, January 28, 2022
Home > বই আলোচনা > নকীব মুহাম্মদ হাবীবুল্লাহর উপন্যাস ‘বিষণ্ণ মানব’ – পাঠ প্রতিক্রিয়া

নকীব মুহাম্মদ হাবীবুল্লাহর উপন্যাস ‘বিষণ্ণ মানব’ – পাঠ প্রতিক্রিয়া

Spread the love

রিভিউদাতা: সালমান সাদ

বিষণ্ণ মানব। বইয়ের প্রচ্ছদপটজুড়েই কেমন যেন একটি বিষণ্ণতা বিরাজ করছে। তুলির আঁচড়ে ফুটে ওঠেছে দুঃখবোধের ছাপ। প্রচ্ছদ দেখে কৌতুহল জাগে। উপন্যাসের প্লট ও গল্পের গতিবিধি সম্পর্কে পাঠকের একটা ধারণাও হয়ে যায়। ফ্ল্যাপে থাকা উপন্যাসের একটা চুম্বকীয় অংশ পাঠকের মন রহস্যাবৃত করে। নতুন লেখকদের হিসেবে গতানুগতিক ধারায় করেছেন বইয়ের উৎসর্গপত্র। 

“একটি কল্প। কল্প থেকে গল্পর জন্ম। মনের খাতায় এই গল্পটি একটি কিশোর গল্প আকারে ছিল। ধীরেধীরে গল্পবৃক্ষটি তার ডালপালা ছড়াতে লাগলো। দেখতে দেখতে তিনটি খাতা ও দু’টি কলমের কালি পরস্পর ভালোবাসায় জড়িয়ে সৃষ্টি হয়েছে এই উপন্যাস ”
বইয়ের শুরুতেই লেখকের বয়ানে আমরা জানতে পারি উপন্যাসের জন্ম-প্রক্রিয়া। স্বল্প কথায় মূলভাব ফুটিয়ে তোলা লেখকের বৈশিষ্ট্য। যদিও লেখক বিনয়বশত দাবি করেন তার উপস্থাপন শৈলী তেমন ভালো না। কিন্ত আমার ধারণার চেয়ে ভালো লিখেন সময়ের উদীয়মান তরুণ প্রতিভাবান লেখক নকীব মুহাম্মদ হাবীবুল্লাহ।
গল্পের পরিবেশের মুগ্ধকর বর্ণনা দিয়ে উপন্যাসের বিসমিল্লাহ-বাক্য শুরু। ঢাল দিয়ে ধীরেধীরে জল গড়িয়ে পড়ার মতো গল্পে গড়িয়ে পড়েন পাঠক। গল্পের চরিত্রদের সাথে একাত্ম হয়ে যেতে থাকেন অবচেতনে।
লেখক গল্প বলেছেন উত্তমপুরুষে। মনে হতে থাকবে লেখক সাবলীল ছন্দে বলে চলছেন তার নিজস্ব জীবন কাহিনী। উপন্যাসে শরীরের ভাঁজে ভাঁজে রয়েছে লেখকের নিজস্ব জীবনচিহ্ন। আর পাঠকমাত্রেই জানেন, কল্পনাপ্রসূত গল্পর চেয়ে জীবনের গল্প বেশ শক্তসমর্থ। স্বতন্ত্র দৃষ্টিভঙ্গিতে পরতে পরতে লেখক ছড়িয়েছেন আদর্শিক বোধের আভা। যেমন এক চুম্বক অংশে আমরা দেখতে পাই আল্লাহতে বিশ্বাস -অবিশ্বাসের যৌক্তিকতা নিয়ে তিনি চরিত্রের কথোপকথন সাজিয়েছেন।
উপন্যাসটির প্রধান চরিত্র মাদ্রাসাপড়ুয়া একজন তরুণ লেখক। তার আশপাশে জোটা বন্ধুরাও লেখক। একটা লেখক সার্কেল ও তাদের লেখালেখিননির্ভর ব্যস্ততা ও সক্রিয়তার বর্ণনা থাকে উপন্যাসজুড়ে। বিষণ্ণ মানব নাম হলেও শুরু থেকেই একটা রোমান্টিক আবহ এবং কচি তরুণ মনের নিভৃত কল্পনার লুকোচুরি প্রেম মিটিমিটি প্রেমের একটা খেলা দেখতে পাই।
ধার্মিক তথা হুজুরদের নিয়ে অনেকে আকাশপাতাল কত কী ভেবে থাকে! কেউ তো ভাবে তারা সব মানবিকতার ঊর্ধে আসমান থেকে নাজেল হওয়া ফেরেস্তা। এ উপন্যাসে চমক হলো পাঠক তেমনই এক ধার্মিক রক্ষণশীল দুই নায়ক-নায়িকার বিচিত্র সব অনুভূতি, ভিন্ন রঙের চিন্তাভাবনা, মানবীয় আবেগ ও লাজুক প্রেমিক হৃদয়ের সাথে পরিচিত হবেন।
উপন্যাসের নায়ক একজন বিষণ্ণ মানব কেন? নায়িকাও কি তাহলে বিষণ্ণ? কাহিনীর শেষে কেন বিষণ্ণতারা অপেক্ষা করছে? সবকিছু না বলে পাঠকের জন্য রেখে দেই।

নকীব মুহাম্মদ হাবীবুল্লাহ অধুনা সময়ের একজন উদীয়মান লেখক। প্রতিভাবান তরুণ। শৈশব থেকেই লেখালেখির হাতেখড়ি। আট বছর বয়সে প্রথম প্রকাশিত হয় তার লেখা প্রবন্ধ। নিয়মিত লিখছেন বিভিন্ন পত্রিকায়। সম্পাদক মাসিক কল্পতরু। এটা তার প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস।

বইয়ের নাম : বিষণ্ণ মানব
প্রকাশক : দাঁড়িকমা প্রকাশনী
মূল্য : ১৬০ টাকা

Facebook Comments