শুক্রবার, ডিসেম্বর ৯, ২০২২
Home > পাঠকীয় > দেশ বাঁচলে রাজনীতি বাঁচবে

দেশ বাঁচলে রাজনীতি বাঁচবে

Spread the love

ফুজায়েল আহমাদ নাজমুল
প্রবাসী লেখক, রাজনীতিবিদ

আন্তরিকভাবে চাইলে কোনো সমস্যার সমাধান হয়নি- ইতিহাসে এমন নজির নেই। প্রধানমন্ত্রী আন্তরিকভাবে চাইলে মুহূর্তের মধ্যেই রাজনৈতিক সংকটের সমাধান হতে পারে, কারণ তার হাতেই সমাধানের চাবিকাঠি। শেখ হাসিনা প্রায়ই বলে থাকেন মানুষের কষ্ট তিনি সহ্য করতে পারেন না; তিনি দেশে শান্তি চান। যদি সত্যিই মন থেকে বলে থাকেন তাহলে খুব ভালো। আর যদি এসব কথা লোক দেখানো হয় তাহলে দেশের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়াবে তাতে কোন সন্দেহ নেই।

আমরা লক্ষ করিছি আগামী পার্লামেন্ট নির্বাচন ঘিরে সংশয় তৈরী হয়েছে। আসলেই কি সবার অংশগ্রহণের মধ্যদিয়ে নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন হবে এ নিয়ে দেশে বিদেশে সচেতন মহলে চলছে কানাঘুষা। ৫ জানুয়ারির মতো ভোটারবিহীন একতরফা আরো একটি নির্বাচন হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা। ইতিমধ্যে ২০ দলীয় জোট নেত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। আওয়ামীলীগ নেতারা যদিও বলছেন এতে সরকারের কোন হাত নেই। কিন্তু আমরা দেখতে পাচ্ছি খালেদা জিয়াকে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্ত করতে সরকার বাধা দিচ্ছে। অত্যন্ত কৌশলে তাঁর জামিন আটকে দেয়া হয়েছে। বেগম জিয়ার আইনজীবীরা বলছেন তাঁকে কোনো আইনি সুবিধা দেয়া হচ্ছে না।

এদিকে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেই দিয়েছেন- নির্বাচনে বিজয় এখন আনুষ্ঠানিকতা মাত্র। তার কথায় মনে হচ্ছে খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে একতরফা নির্বাচন করে আবারও ক্ষমতায় যাওয়ার মাস্টারপ্ল্যান প্রায়ই চূড়ান্ত।

পরাশক্তি ও আঞ্চলিক শক্তির তৎপরতা দেখে প্রতীয়মান হয়, কোনো অদৃশ্য শক্তি যেন বাংলাদেশের রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ কুক্ষিগত করার চেষ্টায় আছে। এমনটি হলে রাজনীতির ভাগ্যে বিপর্যয় ঘটার সমূহ আশংকা আছে। আর রাজনীতিতে বিপর্যয় ঘটলে বিপর্যয় ঘটবে রাজনীতিকদের জীবনে; বিপর্যয় ঘটবে দেশেও। কাজেই রাজনীতিকদের সতর্ক হতে হবে। দেশের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সংকট সমাধানে আন্তরিকভাবে এগিয়ে আসতে হবে।

আমরা চাই, আর যেন কোনো মায়ের বুক খালি না হয়, কোনো প্রাণ যেন ঝরে না যায়। গত কয়েক বছরে রাজনৈতিক কারণে দেশে কয়েক হাজার মানুষের জীবন প্রদীপ নিভে গেছে এবং বর্তমানেও এ হত্যার মিছিল বেড়ে চলেছে। জাতি এসব থেকে মুক্তি চায়।

মনে রাখতে হবে, দেশ বাঁচলে রাজনীতি বাঁচবে। দেশ যদি বিপর্যয়ে পড়ে তাহলে রাজনীতিকরা কী নিয়ে রাজনীতি করবেন? কাজেই সময় থাকতে পরস্পরের ভেদাভেদ ভুলে আলোচনার মাধ্যমে রাজনৈতিক সমস্যার সমাধানে সবাইকে মনোনিবেশ করতে হবে, যাতে সংঘাতের পথ এড়ানো সম্ভব হয়। সুস্থ রাজনীতির ধারা দেশে ফিরে আসে।

জনকল্যাণে রাজনীতি করলে রাজনীতি কোনোভাবেই সহিংসতার পথে ধাবিত হয় না। রাজনীতিতে পরাজয়কে সহজভাবে মেনে নেয়ার সংস্কৃতি গড়ে তুলতে হবে এবং বিজয়কে ধৈর্য ও সহিষ্ণুতার সঙ্গে গ্রহণ করতে হবে। এতেই রয়েছে দেশ ও জাতির কল্যাণ। শুভবুদ্ধির উদয় হোক এই কামনা।

Facebook Comments