Monday, January 17, 2022
Home > নারী > কন্যা সন্তানের যত্নবান হোন : ঝুমাইয়া আফরোজ কবিতা

কন্যা সন্তানের যত্নবান হোন : ঝুমাইয়া আফরোজ কবিতা

Spread the love

ঝুমাইয়া আফরোজ কবিতা
গল্পকার

মেয়েরা হচ্ছে রত্ন স্বরূপ। একটি মেয়ে কখনো মেয়ে,কখনো আবার কখনো মায়ের রূপ নেয়। তার মাঝেই বেড়ে উঠে অন্য একটি প্রাণ।একটি চারাগাছকে যেমন বীজ ফোটানো থেকে শুরু করে বড় হওয়ার আগ পর্যন্ত যত্ন করে বড় করতে হয় অন্যথায় গাছটি সঠিক ভাবে বেড়ে উঠতে না পারলে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফুল ও ফল ফোটাতে পারেনা।তেমনি মেয়েদের বেলায়ও একই অবস্থা হয়।মেয়েরাও গাছের মত প্রজনন ক্ষমতার অধিকারী।তাদেরকে বীজ অবস্থায়ই সঠিক যত্ন নেওয়া উচিত। ছোট থেকে সঠিক যত্ন না নিয়ে ভবিষ্যতে এর ফল ভোগ করতে হয়।

একটি মেয়ে যখন শৈশব পার করে কৈশোরে পা রাখে তখন তার শরিরে আসে এক বিরাট পরিবর্তন। তার শরিরে প্রজনন ক্ষমতার একটি লক্ষণ দেখা দেয়।আর সেটি হলো পিরিয়ড যা আমরা বাংলায় ঋতুস্রাব বলে জানি। এসময় মেয়েদের শরির থেকে প্রচুর পরিমানে ব্লাড বের হয়ে যায়।প্রতিমাসেই এই ঋতুস্রাব হয়ে থাকে।

এসময় মেয়েদের একটু যত্ন দরকার।ভালো খাবার খাওয়া, শরিরের যত্ন নেওয়া ঠিকমত ঘুম।মানসিকভাবে সুস্থ থাকা দরকার।এজন্য সবার আগে দরকার পরিবারের সাহায্য।অনেকে এই ঋতুস্রাবের কথা শুনলে হাসাহাসি করে আসলে এটা করা উচিত না।যাদের এই ঋতুস্রাব হয়না তাদের প্রজনন ক্ষমতা থাকেনা।

আমাদের দেশে এখনো অহরহ মেয়েরা ভিবিন্নভাবে বঞ্চিত হচ্ছে। সাধারণত গ্রামে হোক বা শহরে এখনো অনেক পরিবার আছে যারা গর্ভবতী মায়েদের প্রতি যতেষ্ট যত্নশীল নন।তারা মনে করেন গর্ভাবস্থায় বেশি খেলে বাচ্চা বড় হয়ে যায়। এজন্য সিজার করা লাগে বা বেশি বেশি ডাক্তারের পরামর্শ নিলে পরিক্ষা নিরিক্ষা করলে তাদের আর রক্ষা নেই। তাদের সিজার না করে উপায় নেই। এসব ধারনা ভুল।

একটি মেয়ে যখন গর্ভবতী হয় তখন তাকে বেশি বেশি ফলমূল শাকসবজি খেতে দেওয়া উচিত। প্রতিমাসে একবার স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে গর্ভবতীমায়ের স্বাস্থ্য পরিক্ষা করা দরকার। মায়ের যত্ন নিলে গর্ভের শিশুও সুস্থ্য থাকে।

মেয়েরা সংসারের সবচেয়ে মূল্যবান অংশ। সন্তান জন্মদান থেকে শুরু করে সংসারের যাবতীয় কাজ করে থাকে সে।সংসারের আগা বল গোড়া বল সেই এক হাতে সব কিছু সামলায়।পুরুষ বাইরে থেকে যোগান দেয় মাত্র।ছেলে মেয়েদের লেখাপড়া, স্বামীর কখন কি প্রয়োজন,আত্মীয় স্বজনদের খোঁজখবর,শ্বশুর শাশুড়ীর যত্ন,এসবকিছু করতে করতে নিজের কথাই ভুলে যায় সে।নিজেকে নিয়ে ভাবার ফুসরত থাকেনা। তাই প্রতিটা পরিবারেরই উচিত কন্যাসন্তানে যত্নবান নেয়া।

Facebook Comments