Wednesday, January 19, 2022
Home > বিজ্ঞান প্রযুক্তি > ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য মোবাইল ফোন

ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য মোবাইল ফোন

Spread the love

অক্ষর : এই মুহুর্তে বিশ্বে সবচেয়ে বহুল ব্যাবহৃত গেজেট অবশ্যই স্মার্টফোন। প্রতিদিন প্রায় প্রতিটি কাজেই এখন আমরা স্মার্টফোন ছাড়া অচল। সাধারণ কমিউনিকেশন ডিভাইস থেকে স্মার্টফোনের বিবর্তনের ইতিহাসও মনে রাখার মতো। আসুন আজ দেখে নিই ইতিহাসের এমন ১০টি মোবাইল ফোন যা প্রত্যেক গেজেটপ্রেমীর মনে লেগে আছে আজও।

১. মটোরোলা ডায়না টিএসি, ১৯৮৪ : ১৯৮৪ সালে এই ফোনের হাত ধরেই বাজারে আসে মোবাইল ফোন। এই ফোন চার্জ হতে সময় লাগত প্রায় ১০ ঘন্টা। ১০ ঘন্টার চার্জে এই ফোনে ৩০ মিনিটের টকটাইম পাওয়া যেত। ৩০টি নম্বর সেভ করা যেত মটোরোলা ডায়না টিএসি-তে। সেই সময় ফোনের দাম ছিল ৪০০০ মার্কিন ডলার।

২. মটোরোলা স্টারটিএসি, ১৯৮৬ : এটি ছিল পৃথিবীর প্রথম ক্যামশেল মোবাইল ফোন। এই ফোনের দাম ছিল ১০০০ মার্কিন ডলার। এই ২জি ফোনে ছিল একটি মোনোক্রোম গ্রাফিক ডিসপ্লে। ডিসপ্লের রেজ্যুলিউশন ছিল ৪x১৫ ক্যারেকটার রেজ্যুলিউশন। এছাড়াও এই ফোনে ছিল ভাইব্রেশান ও ৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি।

৩. নোকিয়া কমিউনিকেটর, ১৯৯৬ : ১৯৯৬ সালে সময়ের অনেক আগে প্রথম স্মার্টফোন বাজারে আনে নোকিয়া। এই ফোনের স্টোরেজ ৮জিবি। এছাড়াও ফোনে আছে ক্যামশেল ডিজাইন সাথে স্ক্রিন ও কী-বোর্ড। সেই আমলে এই ফোনে ওয়েব ব্রাউজ করা যেত। এছাড়াও এই ফোন থেকে পাঠানো যেত ইমেইল। ফলে সময়ের থেকে অনেকটাই এগিয়ে ছিল এই ফোন।

৪. নোকিয়া ৩৩১০ : পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় ফোন অবশ্যই নোকিয়া ৩৩১০। এই ফোনেই প্রথম ছিল সাইলেন্ট মোডে ভাইব্রেশানের ফিচার। এছাড়াও এই ফোন বিখ্যাত তার বিল্ড কোয়ালিটির জন্য।

৫. নোকিয়া ১১০০ :এটি অবশ্যই অন্যতম জনপ্রিয় ফিচার ফোন। এখনো বিশ্বব্যাপী বহু গ্রাহক ব্যাবহার করেন এই ফোন। একবার চার্জ দিলে ২০ দিন চলে এই ফোন। এছাড়াও এই ফোন খুব শক্তপোক্ত বলে ব্যাবহারকারীদের কাছে খুব প্রিয়।

৬. ট্রেও ১৮০ : এই ফোনটি ছিল পাম ট্রেও (Palm Treo) কম্পানির অন্যতম জনপ্রিয় স্মার্টফোন। এই ফোন চলতো Palm OS এর মাধ্যমে। এই ফোনে ছিল মোনোক্রোম টাচস্ক্রিন।

৭. মটোরোলা রেজার : সেই সময়ে নতুন প্রজন্মের ফ্যাশন স্টেটমেন্ট ছিল এই ফোনটি। মটোরোলা রেজার-এ চার্জিং ও মিউজিকের জন্য ছিল একটি মিনিইউএসবি পোর্ট।

৮. আইফোন :
২০০৭ সালে iPhone লঞ্চ হওয়ার পরে বদলে গেল স্মার্টফোনের ইতিহাস। এই প্রথম স্টাইলাস ছাড়া নিজের আঙুল দিয়ে ব্যাবহার করা গেল টাচস্ক্রিন। মোবাইল ফোন টেকনোলজিকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেল iPhone। যা পরে অনুসরণ করেছিল সব মোবাইল কোম্পানি।

৯. স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট : iPhone ছাড়া Samsung Galaxy Note সিরিজের ফোনগুলি দেখিয়েছিল নতুন আবিষ্কারের দিশা। এই ফোনেই প্রথম দখা যায় আইরিস স্ক্যানার, কার্ভড ডিসপ্লে, ওয়াটারপ্রুফিং ও স্টাইলাস।

১০. এলজি জি৬ : এটিই প্রথম 18:9 অ্যাসপেক্ট রেশিওর স্মার্টফোন। যা আজকাল সব মোবাইলেই দেখা যাচ্ছে। এর ফলে ছোট হয়েছে ফোনের বেজেল। স্ক্রিনের পুরোটা জুড়েই এসেছে ডিসপ্লে।

Facebook Comments